Time
Bangladesh Dhaka

12:21:16 PM

Australia Sydney

5:21:16 PM

Weather
Yahoo! Weather - Sydney Regional Office, AS


Current Conditions:
Find more about Weather in Sydney Regional Office, AU
Click for weather forecast
Currency Rate

Prayer Time
  • Fajr 4:41
  • Sunrise 6:14
  • Zuhr 1:09
  • Asr 4:53
  • Maghrib 8:02
  • Ishaa 9:31
Reader Number
           
 

স্থানীয় সংবাদ

ভোটকেন্দ্র দখলে নিয়েছে সরকারদলীয়রা: রিজভী
বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, বরিশাল, বাগেরহাট, ফেনী, নড়াইল ও রাজশাহীর বিভিন্ন উপজেলা পরিষদের ভোটকেন্দ্র আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় সরকারদলীয় সন্ত্রাসীরা দখল করে নিয়েছে। আজ শনিবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তৃতীয় দফার উপজেলা নির্বাচন নিয়ে সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি এসব অভিযোগ করেন। বিএনপির এই নেতার দাবি, বরিশালের মুলাদি উপজেলায় সরকারি দলের সন্ত্রাসীদের হামলায় রফিক ও নিজাম নামে ছাত্রদলের দুই কর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন। বাগেরহাটের শরণখোলা ও মোরেলগঞ্জে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ ও সাবেক মন্ত্রী মোজ্জাম্মেল হকের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা প্রায় সব ভোটকেন্দ্র দখল করে নিয়েছে। সিরাজ নামের একজনকে কুপিয়ে তাঁর দুই হাত-পা ভেঙে দিয়েছে এবং চোখ উঠিয়ে নিয়েছে। ফেনীর দাগনভূঞার ৬২টি কেন্দ্রের ৫৯টি দখল করে নিয়েছে সরকারদলীয়রা, একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে এবং বাকি দুটি কেন্দ্রে ভোট হচ্ছে। নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় পুলিশের সহায়তায় প্রায় সব কেন্দ্রে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। এসব ঘটনা তুলে ধরে তিনি বলেন, এই সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না, এটা আবারও প্রমাণিত হলো। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিশেষ করে পুলিশ ও র্যাব যেভাবে দলীয়করণ হয়েছে; তাদের ওপর ভরসা করা যায় না। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সেনাবাহিনী নির্বাচনে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে আছে। কিন্তু তাদের কোনো ভূমিকা নেই। কারণ, তাদের কোনো ক্ষমতা দেওয়া হয়নি। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দেশে না থাকা প্রসঙ্গে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ইসি (নির্বাচন কমিশন) পরিবারের প্রধানের নির্বাচনকালীন বিদেশে হাওয়া খেয়ে বেড়ানো প্রমাণ করে এটি তাদের দুরভিসন্ধি।
--------
৮১ উপজেলায় আজ ভোট
উপজেলা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে আজ শনিবার ৮১টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ হবে। এ নির্বাচনে পছন্দের প্রার্থীদের জেতাতে মন্ত্রী-সাংসদদের অনেকে এখন এলাকায় অবস্থান করছেন। তাঁদের কয়েকজনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। আজ ভোট হলেও গতকাল শুক্রবার নির্বাচন কমিশনারদের কেউ অফিস করেননি। কমিশনের নির্দেশনা না থাকায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাও নেওয়া হয়নি। প্রথম ধাপে নির্বাচন সুষ্ঠু হলেও দ্বিতীয় ধাপে সহিংসতা ও ভোট জালিয়াতির ঘটনা বেড়ে যায়। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের কর্মকর্তাদের কেউ কেউ তৃতীয় ধাপেও সহিংসতা ও ভোট জালিয়াতির আশঙ্কা করছেন। ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাচন কমিশনার আবদুল মোবারক গত রোববার প্রথম আলোকে বলেছিলেন, প্রার্থী-সমর্থকেরা অসহিষ্ণু হয়ে উঠেছেন। ফলে তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে সহিংসতা বেশি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছেন, গতকাল রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক উপজেলার কনকাপৈত ইউনিয়নের একটি সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। নির্বাচন উপলক্ষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালও গতকাল কুমিল্লা শহরে অবস্থান করেছিলেন। স্থানীয় সরকার (উপজেলা পরিষদ) নির্বাচনী আইনের আচরণবিধি অনুযায়ী, স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, উপমন্ত্রী বা সমপদমর্যাদার কেউ নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন না। তবে তাঁরা ভোট গ্রহণের দিন ভোট দিতে পারবেন। বরিশাল থেকে প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক জানিয়েছেন, বেসামরিক বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন গতকাল নিজ এলাকা বরিশালে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম গতকাল থেকে রাজশাহীতে অবস্থান করছেন। এর আগে বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ তাঁর নির্বাচনী এলাকায় সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এবং বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে যোগদানের মাধ্যমে আচরণবিধি লঙ্ঘন করেন। জানতে চাইলে নির্বাচন কমিশনার আবু হাফিজ প্রথম আলোকে বলেন, চিফ হুইপের বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ কমিশনের নজরে এসেছে। রেলমন্ত্রীও যদি আচরণবিধি লঙ্ঘন করে থাকেন, সে ক্ষেত্রে আজকের কমিশনের সভায় বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে। তফসিল অনুযায়ী, আজ সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত ভোটাররা তাঁদের পছন্দের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের ভোট দেবেন। চেয়ারম্যান পদে ৪১৯, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪২৩ এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ২৭৭ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মোট ভোটার এক কোটি ৩১ লাখ ৮৫ হাজার ১৩। নারী ভোটার ৬৬ লাখ ১৭ হাজার ১৮১ এবং পুরুষ ৬৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮৩২ জন। মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা পাঁচ হাজার ৪৪৪। প্রথম আলোর প্রতিনিধিদের হিসাব অনুযায়ী, ৫০টি উপজেলায় আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী রয়েছে। এতে মোট প্রার্থী ১৪৫ জন। এর মধ্যে মাত্র ১৯টি উপজেলায় তাদের প্রার্থীর সংখ্যা ৭১। অন্যদিকে বিএনপির একাধিক প্রার্থী রয়েছে ৩৪টি উপজেলায়। এতে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৮৯। এর মধ্যে ১২টি উপজেলায় প্রার্থীর সংখ্যা ৪৫। উপজেলা নির্বাচনের খারাপ ফলের জন্য আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থীদের দায়ী করেছে। এবারও তারা একই আশঙ্কা করছে। কমিশন সচিবালয় সূত্র জানায়, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণের জন্য মাঠপর্যায়ে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। প্রতিটি উপজেলায় স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে এক প্লাটুন সেনাসদস্য টহল দেবেন। এ ছাড়া নিয়মিত বাহিনী হিসেবে র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ ও আনসার থাকবে।
--------
মাঠপর্যায়ে বিএনপি ও জামায়াতের টানাপোড়েন
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মাঠপর্যায়ে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতে ইসলামীর টানাপোড়েন বেড়েছে। আজ তৃতীয় ধাপের ৮১টি উপজেলার এক-চতুর্থাংশে আওয়ামী লীগের পাশাপাশি বিএনপির প্রতিপক্ষ হিসেবে আছেন জামায়াত-সমর্থিত প্রার্থীরা। এই ৮১টি উপজেলার ৭৯টিতে দল-সমর্থিত প্রার্থী দিয়েছে বিএনপি। আর ২৪টিতে প্রার্থী সমর্থন দিয়েছে জামায়াত। এর মধ্যে শুধু চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ ও নওগাঁর ধামইরহাটএ দুটি উপজেলায় বিএনপি প্রার্থী দেয়নি। বিএনপির উপজেলা নির্বাচন সমন্বয়ের সঙ্গে যুক্ত একাধিক দায়িত্বশীল নেতা জানান, তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে জামায়াত-সমর্থিত প্রার্থীদের ফেরাতে নানাভাবে চেষ্টা-তদবির করা হয়। বিশেষ করে ফরিদপুর, দিনাজপুর, কুড়িগ্রাম ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে জামায়াতকে নির্বাচন থেকে সরাতে আপ্রাণ চেষ্টা চালানো হয়। কিন্তু তাতে ফল হয়নি। বিষয়টি স্বীকার করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মাহবুবুর রহমান গতকাল প্রথম আলোকে বলেন, দিনাজপুর সদরে জামায়াতের কোনো অবস্থান নেই। তার পরও তারা প্রার্থী দাঁড় করিয়ে দিয়েছে। তারা ১৯ দলের স্পিরিটটা দেখছে না। এটি মাঠ পর্যায়ে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের টানাপোড়েন সৃষ্টি করবে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি। সূত্র জানায়, সিলেট বিভাগে জামায়াতের সঙ্গে সমঝোতা না হওয়ায় বিএনপির প্রার্থীদের বেকায়দায় পড়তে হচ্ছে। এখানে কিছু কিছু এলাকায় জামায়াতেরও ভালো অবস্থান আছে। এ কারণে শেষ মুহূর্তে এসে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা জামায়াতকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব। তবে গতকাল পর্যন্ত এ উপজেলায় বিএনপির দলীয় দুই প্রার্থী আলী আহম্মেদ এবং এ টি এম ফয়েজ সরে দাঁড়াননি। জামায়াত-সমর্থিত বর্তমান চেয়ারম্যান লোকমান আহমাদ এবারও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। অবশ্য কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে নির্বাচনে থেকে যাওয়ায় দুই প্রার্থী সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আলী আহম্মেদ ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলা বিএনপির সভাপতি এ টি এম ফয়েজকে গত বুধবার দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। কিন্তু জামায়াতের প্রার্থীর জন্য দলের দুই গুরুত্বপূর্ণ নেতাকে বহিষ্কারের ঘটনায় স্থানীয় বিএনপিতে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া হয়েছে বলে দলীয় সূত্রগুলো জানিয়েছে। এদিকে উপজেলা নির্বাচনে জামায়াতের এ ধরনের ভূমিকায় বিএনপির নীতিনির্ধারণী পর্যায়েও অস্বস্তি তৈরি হয়েছে। আলাপকালে বিএনপির একজন যুগ্ম মহাসচিব এই প্রতিবেদককে বলেন, জামায়াত নিজেদের স্বার্থের বাইরে অন্য কিছু চিন্তা করতে পারে না। যেখানে তাদের সামান্যতম সমর্থন আছে, সেখানেই তারা প্রার্থী দিয়েছে। যদিও এর জন্য স্থানীয় নেতাদের মতবিরোধকে দায়ী করেন জামায়াতের নেতারা। কুড়িগ্রাম জেলা জামায়াতের দায়িত্বশীল একজন নেতা প্রথম আলোকে বলেন, ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় জামায়াতের জেলা আমির আজিজুর রহমান সরকার প্রার্থী হয়েছিলেন। তাঁকে ঠেকাতে সেখানে জেলা বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ একজন নেতা ও সাবেক সাংসদ দলের প্রার্থী দেন। নির্বাচনে তিনি তৃতীয় হন। এর বদলা নিতে এখন জামায়াত সদরে প্রার্থী দিয়েছে। জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম বলেন, আমরা আমাদের, তারা তাদের রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে প্রার্থী সমর্থন দিয়েছে। অনেক জায়গায় সমঝোতা হয়েছে, অনেক জায়গায় হয়নি। সমন্বয় হলে ফলাফল আরও ভালো হতো। জামায়াতের দায়িত্বশীল সূত্রগুলো জানায়, উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের চেয়ে জামায়াত বেশি মনোযোগী ভাইস চেয়ারম্যান পদের দিকে। তৃতীয় ধাপের নির্বাচনে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪১ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজনকে সমর্থন দিয়েছে দলটি। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের একজন সদস্য প্রথম আলোকে বলেন, বিএনপির নীতিনির্ধারকদের বিবেচনায় নিতে হবে যে জামায়াত মাত্র ২৪টি উপজেলায় প্রার্থী দিয়েছে। এর মধ্যে মাত্র দুটিতে বিএনপির প্রার্থী নেই। প্রথম ও দ্বিতীয় পর্বে জামায়াত-সমর্থিত ২০ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জয়ী হন। ওই দুই পর্বে মহিলা-পুরুষ মিলিয়ে দলটির ৭৭ জন ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তৃতীয় ধাপেও জয়ের ধারা বজায় রাখতে দলটি স্থানীয়ভাবে ভিন্ন ভিন্ন কৌশল নিয়ে মাঠে তৎপর রয়েছে বলে দলীয় সূত্রগুলো জানায়। এদিকে প্রথম দুই ধাপে বিএনপি চেয়ারম্যান পদ পেয়েছে ৯৪টি এবং আওয়ামী লীগ পেয়েছে ৭৮। আর দুই শ্রেণীর ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৭১টি বিএনপি এবং ১২৯টি পেয়েছে আওয়ামী লীগ।
--------
বাগেরহাটে নির্বাচনী সহিংসতায় শিবির কর্মী নিহত
নির্বাচন চলাকালে বাগেরহাট সদর উপজেলায় প্রতিপক্ষের হামলায় মাঞ্জারুল ইসলাম নামের ইসলামী ছাত্রশিবিরের একজন কর্মী নিহত হয়েছেন। আজ শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। আহত হয়েছেন দুজন। আহত ব্যক্তিরা হলেন রফিকুল ইসলাম (৪৮) ও মো. রমিজ (৫৫)। গুরুতর অবস্থায় রফিকুলকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সকাল নয়টার দিকে সদর উপজেলার কাড়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) কার্যালয় কেন্দ্রের কাছে মেগনিতলা বাজারে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হন মাঞ্জারুল ইসলাম। এ সময় হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও ইট দিয়ে থেঁতলে গুরুতর জখম করেন তাঁকে। গুরুতর আহত অবস্থায় বাগেরহাট সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিত্সক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। এর জের ধরে ভোট কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ ও জামায়াত কর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় আওয়ামী লীগের কর্মী রফিকুল ইসলাম ও জামায়াতের কর্মী মো. রমিজ আহত হন। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলী আজম খান কাড়াপাড়ায় মাঞ্জারুলের নিহত হওয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এ ব্যাপারে বিস্তারিত তিনি জানাতে পারেননি। বাগেরহাট জেলা জামায়াতে ইসলামের সেক্রেটারি শেখ আবদুল ওয়াদুদ অভিযোগ করে বলেন, ১৯ দলের প্রার্থীদের পক্ষে কাজ করায় আওয়ামী লীগের কর্মীরা মাঞ্জারকে হত্যা করেছেন। মাঞ্জার বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার টেংরাখালী গ্রামের আফজাল হোসেনের ছেলে। তিনি বাগেরহাট সরকারি পি সি কলেজের অর্থনীতি বিভাগের (সম্মান) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন এবং জেলা ছাত্রশিবিরের সাথি ছিলেন বলে জানান আবদুল ওয়াদুদ। সকাল থেকে বাগেরহাট সদর উপজেলার বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি খুব কম। অধিকাংশ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থীর এজেন্টদের দেখা যায়নি। শহরের খারদ্বার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা ভোটারদের আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীর কর্মীরা ব্যালটে প্রকাশ্যে সিল দিতে বাধ্য করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিএনপি-সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী সৈয়দ নাসির উদ্দিন মালেক অভিযোগ করেন, ভোট শুরুর আধা ঘণ্টার মধ্যে শহর ও পার্শ্ববর্তী এলাকার অন্তত ১৫টি ভোটকেন্দ্র থেকে তাঁর এজেন্টদের বের করে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকেরা। বাগেরহাট সদর, মোরেলগঞ্জ, শরণখোলা, রামপাল ও মংলা উপজেলায় ভোট গ্রহণ চলছে।
--------
 
 

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সিরিয়ায় চার বছরের যুদ্ধে দেড় লাখ লোক নিহত
সিরিয়ায় চলমান গৃহযুদ্ধের চার বছর পূর্ণ হয়েছে আজ শনিবার। এই যুদ্ধে এ পর্যন্ত অন্তত এক লাখ ৪৬ হাজার মানুষ নিহত হয়েছে। আজ বার্তা সংস্থা এএফপির এক খবরে এ কথা জানানো হয়। এ ছাড়া কয়েক লাখ মানুষ বাড়িঘর হারিয়েছে, ধ্বংস হয়েছে দেশের ঐতিহাসিক সম্পদ ধ্বংস হয়েছে। বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে অর্থনৈতিক অবস্থা পরিস্থিতি । ২০১১ সালের ১৫ মার্চ মাসে সিরিয়ায় শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধ চার বছর ধরে এখনো চলছে। আজ জেনেভায় সিরিয়ার সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে সমঝোতার লক্ষ্যে দ্বিতীয় দফার শান্তি আলোচনা কোনো ধরনের অগ্রগতি ছাড়াই শেষ হয়েছে। গতকাল শুক্রবার জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা জানায়, সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের কারণে ৯০ লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে শরণার্থী হয়ে গেছে। পাশের দেশগুলোতে সিরিয়ার ২৫ লাখেরও বেশি মানুষ নিবন্ধিত শরণার্থী হয়ে আছেন। অনেকের এখনো নিবন্ধনই হয়নি। ২০১১ সালের ১৫ মার্চে প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের সরকারের পদত্যাগের দাবিতে সিরিয়ায় ফুঁসে ওঠে আন্দোলন। ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে এই তা গৃহযুদ্ধে রূপ নেয়।
--------
মালয়েশীয় বিমানটি কি ছিনতাই হয়েছে?
নিখোঁজ হওয়া মালয়েশীয় বিমানটির পরিণতি নিয়ে অনুসন্ধান চালাতে গিয়ে এবার ছিনতাইয়ের বিষয়টি তদন্তে এসেছে। খতিয়ে দেখা হচ্ছে, বিমানটি ছিনতাই হয়েছে কি না। একই সঙ্গে বিমানটির নিখোঁজ হওয়ার পেছনে কোনো চালকের আত্মহত্যার ঘটনা রয়েছে কি না, সেটিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আজ শনিবার টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সর্বশেষ তথ্যপ্রমাণে দেখা গেছে, বিমানটি দক্ষিণ চীন সাগরের বিধ্বস্ত হয়নি। কিছু বিশেষজ্ঞ ধারণা করছেন, কোনো বৈমানিক বা অন্য কেউ বিমানটি ছিনতাই করেছেন বা বিমানটি সাগরে বিধ্বস্ত করে আত্মহত্যা করেছেন। বিমান নিখোঁজের ঘটনায় কোনো মানুষের হাত রয়েছে কি না, তা তদন্ত করছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। গতকাল শুক্রবার এক মার্কিন কর্মকর্তা বলছেন, বিমনাটি ছিনতাই হতে পারে। বিমানটি কোথাও অবতরণও করতে পারে। তবে সব তথ্য-উপাত্ত যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। মার্কিন কর্মকর্তাদের সর্বশেষ তথ্য, বিমানটির যোগাযোগের দুটি ব্যবস্থা ১৪ মিনিটের ব্যবধানে একে একে বন্ধ হয়ে যায়। দৃশ্যত এগুলো পরিকল্পিতভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। এতে মনে হচ্ছে, আকস্মিক কোনো বিপর্যয় বা দুর্ঘটনায় বিমানটি যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়নি। তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন, গতকাল দিবাগত রাত একটা সাত মিনিটে বিমানের ডেটা রিপোর্টিং সিস্টেম এবং একটা ২১ মিনিটে ট্রান্সপন্ডার (বেতারবার্তা পাঠানোর যন্ত্র) বন্ধ হয়ে যায়। পাইলট মালয়েশিয়ার এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলকে সব ঠিক আছে, শুভ রাত্রি বলার পরপরই ট্রান্সপন্ডার বন্ধ হয়ে যায়। সেটাই বিমানটির শেষ যোগাযোগ। সাত দিন পেরিয়ে গেলেও মালয়েশিয়ার নিখোঁজ বিমানটির হদিস মেলেনি। ফ্লাইট এমএইচ৩৭০ নিখোঁজ হওয়ার পর থেকেই এর সম্পর্কে একের পর এক তথ্য দেওয়া হয়েছে। কোনো না কোনো পক্ষ আবার এর সত্যতা নাকচ করেছে। তবে অনুসন্ধানকাজে ভাটা না পড়ে গতকাল বরং তল্লাশির এলাকা ভারত মহাসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া কিছু তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে নজর দেওয়া হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র নিজেও ভারত মহাসাগর এলাকায় অত্যাধুনিক নজরদারি বিমান ও জাহাজ পাঠিয়েছে। মালয়েশিয়া এয়ারলাইনসের বোয়িং-৭৭৭ বিমানটি ১৪টি দেশের ২৩৯ জন আরোহী নিয়ে কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিংয়ে যাওয়ার পথে গত শুক্রবার মধ্যরাতের পর নিখোঁজ হয়। উড্ডয়নের প্রায় এক ঘণ্টা পর দক্ষিণ চীন সাগরের ওপর উড়োজাহাজটির সর্বশেষ অবস্থান রাডারে ধরা পড়ে।
--------
দেবযানির বিরুদ্ধে আবার অভিযোগ
ভারতীয় কূটনীতিক দেবযানি খোবরাগাড়ের বিরুদ্ধে নতুন করে অভিযোগ দায়ের করেছেন মার্কিন কৌঁসুলিরা। টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, গতকাল শুক্রবার মার্কিন কৌঁসুলিরা এই অভিযোগ দায়ের করেন। দেবযানির বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের দায়ের করা প্রথম মামলাটি গত বুধবার খারিজ করে দেন আদালত। কূটনৈতিক দায়মুক্তির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে মার্কিন আদালত দেবযানিকে ওই মামলা থেকে অব্যাহতি দেন। মামলা খারিজ হওয়ার পর ম্যানহাটনে মার্কিন অ্যাটর্নি প্রিত ভারারের মুখপাত্র জেমস মার্গোলিন জানান, আদালত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। কিন্তু দেবযানির বিরুদ্ধে নতুন মামলা করতে কোনো বাধা নেই। যথাযথভাবে সেই মামলা করার কথা বিবেচনা করা হচ্ছে। গতকাল মার্কিন কৌঁসুলিরা দেবযানির বিরুদ্ধে নতুন করে অভিযোগপত্র দিল। এই পদক্ষেপে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক আবারও তিক্ত হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। গৃহকর্মীর ভিসা আবেদনে মজুরি নিয়ে মিথ্যা তথ্য দেওয়া এবং তাঁকে চুক্তি অনুযায়ী পারিশ্রমিক না দিয়ে বেশি কাজ করানোর অভিযোগে গত বছরের ১২ ডিসেম্বর নিউইয়র্কে ভারতীয় কনস্যুলেটের তত্কালীন ডেপুটি কনসাল জেনারেল দেবযানিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তিনি জামিনে ছাড়া পান। ভারত দেবযানির কূটনৈতিক দায়মুক্তি বা ছাড়ের দাবি পরিত্যাগ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল। এরই প্রেক্ষাপটে মার্কিন ফেডারেল আদালতের গ্র্যান্ড জুরি দেবযানির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। একপর্যায়ে দেবযানিকে বাঁচাতে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের স্থায়ী মিশনে ভারতের জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক হিসেবে নিয়োগ দেয় নয়াদিল্লি। পরে তাঁকে যুক্তরাষ্ট্র ত্যাগের নির্দেশ দেয় মার্কিন সরকার। চলতি বছরের ১০ জানুয়ারি দেশে ফিরে আসেন খোবরাগাড়ে। এর জের ধরে দুই দেশের সম্পর্কে ব্যাপক তিক্ততার সৃষ্টি হয়। দুই দেশের সম্পর্কের এতটাই অবনতি হয় যে দেবযানিকে গ্রেপ্তারের ঘটনার পরপরই দিল্লি যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে পাল্টা কূটনৈতিক পদক্ষেপ গ্রহণ করে। এর আগে দেবযানি গত ৯ জানুয়ারি কূটনৈতিক অব্যাহতি চেয়ে আদালতে আবেদন করেছিলেন। ম্যানহাটনের মার্কিন ডিস্ট্রিক্ট জজ সিরা সেইন্ডলিন গত বুধবার দেবযানিকে ওই মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়ে বলেন, কূটনৈতিক দায়মুক্তি থাকায় তাঁর বিরুদ্ধে এই মামলা চলতে পারে না। একই সঙ্গে মামলার নিষ্পত্তিও ঘোষণা করেন আদালত।
--------
সাকিবদের আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার ম্যাচ
এ বছর টানা নয় ম্যাচ হারের পর আত্মবিশ্বাসের রসদ খুঁজতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে বাংলাদেশের জন্য জয়ের দেখা পাওয়াটা খুব দরকার ছিল। ফতুল্লায় প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে আরব আমিরাতের বিপক্ষে বহু আরাধ্যের জয় (৪ উইকেটে) এল বটে। তবে তাতে সন্তুষ্ট হওয়ার সুযোগ ছিল সামান্যই। কারণ অপেক্ষাকৃত দুর্বল দলের বিপক্ষে ম্যাচটি জিততে যে মুশফিকুর রহিমের দলের রীতিমতো ঘাম ছুটে গেছে। সেই জয় আফগান-জুজু বাড়িয়ে দিয়েছে বৈ কমায়নি। তবে শঙ্কার মেঘ কাটিয়ে সাকিব-মুশফিকদের মুখে রৌদ্রোজ্জ্বল হাসি ফিরল। আইরিশদের বিপক্ষে এই ম্যাচটিতে যেমন খেলল বাংলাদেশ, ১৬ মার্চের আগুন-পরীক্ষার আগে এমন একটা ম্যাচ ভীষণই দরকার ছিল। এই ম্যাচ আত্মবিশ্বাস ফিরে পাওয়ার! আজও শুরুতে বিপদে পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সব রান আসল টুর্নামেন্টে করবেন বলেই হয়তো টানা দুই প্রস্তুতি ম্যাচে স্বেচ্ছা ব্যর্থতা মেনে নিলেন এনামুল হক। ফিরলেন যখন, স্কোরবোর্ডে মাত্র নয় রান। এরপরই উইকেটে সাব্বির রহমানকে দেখে কেউ কেউ হয়তো চমকে গেছেন। দলের তিন নম্বর জায়গাটি ক্রিকেটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত, সেখানে কিনা সাব্বির? মাত্র একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নিয়েই যিনি বিশ্বকাপে। খেলেননি প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচেও। সাব্বির আস্থার প্রতিদান দিলেন তামিমের সঙ্গে ৩৮ বলে গড়া ৪৮ রানের জুটিতে। ২৩ বলে ২৩ করলেন। এর মধ্যে ১৩ রানই এল সিঙ্গেলস থেকেটি-টোয়েন্টির মারকাটারি খেলাতেও সিঙ্গেলসের গুরুত্বের কথা খোদ তামিম ইকবাল নিজেই বলেছেন প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচের পর। চোট থেকে ফেরা তামিম নিজেও যেন অনেক পরিপক্বতার পরিচয় দিলেন। প্রথম ম্যাচে ৪৩ করার পর আজকের ২৯ বলে ৩২ নিশ্চয়ই বাড়তি আত্মবিশ্বাসও জোগাবে তাঁকে। ভালো একটা শুরুর ভিত্তিতে দাঁড়িয়েই শেষে তুলতে হবে ঝড়এটাই বাংলাদেশের সরল রণকৌশল। প্রথম ১০ ওভারে যেখানে ৬৩ রান তুলল বাংলাদেশ, শেষ ১০ ওভারে তুলল ১১৬ রান। শেষ তিন ওভারেই ৪৭ রান তুলেছেন সাকিব-মুশফিক। বাংলাদেশ অবশ্য আক্ষেপ করতে পারে, ব্যাটিংয়ে সবার অনুশীলনটাই তো হলো না সাকিব-মুশফিকের ঝোড়ো দুটো ইনিংসের কারণে। তবে বোলিংয়ে সেই অনুশীলনটা ভালোমতোই মুশফিক করিয়ে নিলেন বোলারদের দিয়ে। আজ সাত বোলারকে দিয়ে বল করিয়েছেন। মজার ব্যাপার হলো, এর মধ্যে ছয়জনই তুলে নিয়েছেন উইকেট। সবচেয়ে সফল হয়তো সাকিব আর মাশরাফি, দুটো করে উইকেট নিয়েছেন বলে। তবে বাংলাদেশ অধিনায়কের মুখে হাসি ফিরতে পারে বোলারদের সবাই কম-বেশি ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত দিয়েছেন বলে। সোহাগ গাজী বাংলাদেশের উদ্বোধনী বোলার হয়ে গেছেন কিছু দিন ধরে। ৪ ওভারে ২৪ রান দিয়েছেন সোহাগ, প্রথম শিকারটাও তাঁরই। ২৮ রানে ২ উইকেট নিয়ে মাশরাফি বুঝিয়ে দিয়েছেন, ঘরের মাঠের আগের বিশ্বকাপে দর্শক হয়ে বসে থাকার যন্ত্রণা এবার আর সইতে চান না। আইরিশদের প্রথম তিন ব্যাটসম্যানের দুজনই মাশরাফির শিকার। সেই নাম দুটোও উইলিয়াম পোর্টারফিল্ড আর এড জয়েসযাঁরা বহুবার বাংলাদেশকে ভুগিয়েছেন। ৩ ওভারে মাত্র ১৩ রানে ২ উইকেটসাকিব জানিয়ে দিলেন তিনি ব্যাটে-বলেই প্রস্তুত। এশিয়া কাপেও ভালো বোলিং করেছেন। শেষ ম্যাচেও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১০ ওভারে দিয়েছিলেন মাত্র ২৭ রান। উইকেট সেভাবে পাননি (তিন ম্যাচে দুটো উইকেট)। তবে সেই ক্ষুধা মিটিয়ে নেওয়ার জন্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তো রইলই। তবে সাকিবের চেয়েও আজ বেশি কৃপণ ছিলেন এশিয়া কাপে খেই হারিয়ে ফেলা আল আমিন। ৩ ওভারে মাত্র ১১ রান দিয়ে তুলে নিয়েছেন স্টুয়ার্ট থম্পসনের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটি। এই টমসনই আজ সপ্তম উইকেটে ওভারে ১৩-এর বেশি করে রান তোলা ৩৭ রানের জুটি গড়ে ভোগাচ্ছিলেন বাংলাদেশকে। মাশরাফি-আল আমিন দুজনেরই ছন্দ ফিরে পাওয়াটাও আজকের ম্যাচে বাংলাদেশ দলের জন্য সুখবর। তবে দুশ্চিন্তার একটা জায়গা কিন্তু থেকেই গেল। ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিদুই জায়গাতেই বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক আবদুর রাজ্জাক আজ ৩ ওভার বোলিং করে দিলেন ৩০ রান। রাজ্জাকের ঘুম ভাঙানোটাই এখন সবচেয়ে জরুরি।
--------
 
";